ব্যারিস্টার তুহিন মালিক ‘ইসলাম বিতর্ক’ বইয়ের মোহাম্মদের (পোষ্য) পুত্রবধু বিয়ে করার যে বিষয়টি নিয়ে ফেসবুকে লিখেছিলো এবং যার প্রেক্ষিতে ‘বদ্বীপ প্রকাশনী’র স্টল বন্ধ ও লেখক-প্রকাশক শামসুজ্জোহা মানিককে গ্রেফতার করা হয়েছে, সে-বিষয়ে সত্যটা কেবল তুহিন মালিক নয়, বেশিরভাগ মুসলমানই জানে না। তারা এটিই জানে না যে, মোহাম্মদ পুত্রবধু বিয়ে করেছিলো। জানবে কী করে, তারা কোরান হাদিসই তো পড়ে না। জয়নবের সাথে মোহাম্মদের বিয়ের ব্যাপারে যা ঐ বইতে লেখা হয়েছে, সে বিষয়ে কোরান-হাদিসে স্পষ্ট উল্লেখ আছে। আমি এখানে কোরান হাদিসের রেফারেন্সসহ তা উল্লেখ করেছি।
বাংলাঃ “আল্লাহ যাকে অনুগ্রহ করেছেন; আপনিও যাকে অনুগ্রহ করেছেন; তাকে যখন আপনি বলেছিলেন, তোমার স্ত্রীকে তোমার কাছেই থাকতে দাও এবং আল্লাহকে ভয় কর। আপনি অন্তরে এমন বিষয় গোপন করছিলেন, যা আল্লাহ পাক প্রকাশ করে দেবেন আপনি লোকনিন্দার ভয় করেছিলেন অথচ আল্লাহকেই অধিক ভয় করা উচিত। অতঃপর যায়েদ যখন যয়নবের সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করল, তখন আমি তাকে আপনার সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ করলাম যাতে মুমিনদের পোষ্যপুত্ররা তাদের স্ত্রীর সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করলে সেসব স্ত্রীকে বিবাহ করার ব্যাপারে মুমিনদের কোন অসুবিধা না থাকে। আল্লাহর নির্দেশ কার্যে পরিণত হয়েই থাকে।”
ইংরেজীঃ “Behold! Thou didst say to one who had received the grace of Allah and thy favour: “Retain thou (in wedlock) thy wife, and fear Allah.” But thou didst hide in thy heart that which Allah was about to make manifest: thou didst fear the people, but it is more fitting that thou shouldst fear Allah. Then when Zaid had dissolved (his marriage) with her, with the necessary (formality), We joined her in marriage to thee: in order that (in future) there may be no difficulty to the Believers in (the matter of) marriage with the wives of their adopted sons, when the latter have dissolved with the necessary (formality) (their marriage) with them. And Allah.s command must be fulfilled.”
এই আয়াতের অর্থ বুঝতে হলে আমাদেরকে যেতে হবে একই সুরার ৪ নং আয়াতেঃ
বাংলাঃ “আল্লাহ কোন মানুষের মধ্যে দুটি হৃদয় স্থাপন করেননি। তোমাদের স্ত্রীগণ যাদের সাথে তোমরা যিহার কর, তাদেরকে তোমাদের জননী করেননি এবং তোমাদের পোষ্যপুত্রদেরকে তোমাদের পুত্র করেননি। এগুলো তোমাদের মুখের কথা মাত্র। আল্লাহ ন্যায় কথা বলেন এবং পথ প্রদর্শন করেন।”
ইংরেজীঃ “Allah has not made for any man two hearts in his (one) body: nor has He made your wives whom ye divorce by Zihar your mothers: nor has He made your adopted sons your sons. Such is (only) your (manner of) speech by your mouths. But Allah tells (you) the Truth, and He shows the (right) Way.”
আমরা দেখতে পাই ৪ নং আয়াতের মাধ্যমে পোষ্য পুত্রকে অবৈধ ঘোষণা করা হয়। নিজেকে যদি প্রশ্ন করেন যে, কেন আল্লাহর এমন চিন্তা হলো যে, পোষ্যপুত্রের মতো একটা মানবিক বিষয়কে অবৈধ করতে হবে? সে না হয় বাদই দিলাম। ৩৭ নং আয়াতটি খেয়াল করলে দেখবেন, এই বিয়ের ব্যাপারে আরবের মানুষ ছিঃছিঃ করেছে। সেই ছিঃছিঃ ঢাকতে আল্লাহকে আয়াত নাজিল করতে হয়েছে।
এবার আসি এ ব্যাপারে সহিহ মুসলিম হাদিসে কী আছে।
Anas (Allah be pleased with him) reported: When the ‘Iddah of Zainab was over, Allah’s Messenger (may peace be upon him) said to Zaid to make a mention to her about him. Zaid went on until he came to her and she was fermenting her flour. He (Zaid) said: As I saw her I felt in my heart an idea of her greatness so much so that I could not see towards her (simply for the fact) that Allah’s Messenger (may peace be upon him) had made a mention of her. So I turned my back towards her. and I turned upon my heels, and said: Zainab, Allah’s Messenger (may peace be upon him) has sent (me) with a message to you. She said: I do not do anything until I solicit the will of my Lord. So she stood at her place of worship and the (verse of) the Qur’an (pertaining to her marriage) were revealed, and Allah’s Messenger (may peace be upon him) came to her without permission. He (the narrator) said: I saw that Allah’s Messenger (may peace be upon him) served us bread and meat until it was broad day light and the people went away, but some persons who were busy in con- versation stayed on in the house after the meal. Allah’s Messenger (may peace be upon him) also went out and I also followed him, and he began to visit the apartments of his wives greeting them (with the words): As-Salamu ‘alaikum, and they would say: Allah’s Messenger, how did you find your family (hadrat Zainab)? He (the narrator) stated: I do not know whether I had informed him that the people had gone out or he (the Holy Prophet) informed me (about that). He moved on until he entered the apartment, and I also went and wanted to enter (the apartment) along with him, but he threw a curtain between me and him, as (the verfes pertaining to seclusion) had been revealed, and people were instructed in what they had been instructed. Ibn Rafii had made this addition in his narration:” O you who believe, enter not the houses of the Prophet unless permission is given to you for a meal, not waiting for its cooking being finished…” to the words”… Allah forbears not from the truth.”
এই হাদিসে লেখা যে, মোহাম্মদ তার পোষ্য পুত্র জায়েদের কাছে জয়নবের ব্যাপারে কিছু একটা উল্লেখ করেছে, তাই জায়েদ তার স্ত্রী জয়নবের দিক থেকে নিজেকে ফিরিয়ে নিচ্ছে এবং পরবর্তীতে সে ডিভোর্স দিতে চেয়েছে। এর অব্যবহিত পূর্বে মোহাম্মদ জায়েদকে পোষ্য থেকে বাতিল করে (সুরা ৩৩:৪), সুতরাং জায়েদের বুঝতে বাকি থাকে না যে, মোহাম্মদ জয়নবের প্রতি আগ্রহ বোধ করেছে। জায়েদ ডিভোর্স দেয় এবং মোহাম্মদ তাকে বিয়ে করে। আরো মজার বিষয় হলো, নবীর আর কোন বিয়েতে মানুষকে দাওয়াত দেয়া হয় নি; একমাত্র জয়নবের সাথে বিয়েতে ছাগল কেটে দাওয়াত দেয়া হয়েছিলো। সে দাওয়াত খেয়েও কয়েকজন সাহাবি নবীর বাড়ি থেকে যাচ্ছিলো না, তাই তৎক্ষণাৎ আয়াত নাজিল হয়েছে (আয়াত নং ৩৩ঃ৫৩)
সুতরাং আমরা দেখতে পাই যে, তুহিন মালিক অন্য কোটি মুসলমানের মতো কোরান-হাদিস সম্পর্কে কিছুই জানে না। লেখক-প্রকাশক শামসুজ্জোহা মানিক ভাইকে গ্রেফতার যদি বৈধ হয়, তবে কোরান-হাদিস মিথ্যা হতে হয়। এ ব্যাপারে মুসলমানরা কী বলবে, তা জানার আগ্রহ বোধ করছি।
Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s